নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু আইন: প্রথম আলো কায়দাবাজ, নাকি মূর্খ?

দৈনিক প্রথম আলোতে আজ একটি খবর প্রকাশ হয়েছে। পত্রিকাটির প্রথম পৃষ্ঠার ওপরের অর্ধেকে তিন কলামে ছাপা খবরটির শিরোনাম: নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু আইন বাতিল চায় পুলিশ। নিঃসন্দেহে এটি উদ্বেগজনক খবর। তবে শিরোনামের নিচে কিকারে বলা হয়েছে, আইনটি বাতিলের আশ্বাস দেননি প্রধানমন্ত্রী

'নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু আইন বাতিল চায় পুলিশ' প্রথম আলোর প্রথম পৃষ্ঠায় প্রকাশিত খবর।
‘নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু আইন বাতিল চায় পুলিশ’ প্রথম আলোর প্রথম পৃষ্ঠায় প্রকাশিত খবর।

কিভাবে জানা গেল পুলিশের আইন বাতিল চাওয়ার বিষয়টি? পুলিশের মহাপরিদর্শক বা পদাধিকারে তার নিকটতম কোনো সহকর্মী এ বিষয়ে কোনো প্রস্তাব পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে? কিংবা পুলিশের মহাপরিদর্শক বা পদাধিকারে তার নিকটতম কোনো সহকর্মী এ কথা বলেছেন কোনো অনুষ্ঠানে বা আলোচনায়? দুক্ষেত্রেই জবাব হলো ‘না’।

তাহলে কে জানিয়েছেন এই দাবি? জানিয়েছেন পদাধিকারে সপ্তম অবস্থানে থাকা একজন পুলিশ কর্মকর্তা (একজন অতিরিক্ত এসপি)। কুমিল্লা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত এসপি তানভীর সালেহিন ইমন এ দাবি জানান। তাও কোনো নীতি-নির্ধারণী সভায় নয়। দাবিটি তিনি জানান সোমবার পুলিশ সপ্তাহে পুলিশ কল্যাণ সভায়।

এই একজন পুলিশ কর্মকর্তার বক্তব্যকে পুরো পুলিশ বাহিনীর বক্তব্য হিসেবে তুলে ধরেছে প্রথম আলো। পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তা আইজিপি বা তার নিকটতম কোনো সহকর্মীর বক্তব্য হলেও বিষয়টিকে বাহিনীটির সিদ্ধান্ত বা চাওয়া হিসেবে বিবেচনা করা যেত।

একজন অতিরিক্ত এসপির কথাকে ভিত্তি করে কায়দা ‘নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু আইন বাতিল চায় পুলিশ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ সাংবাদিকতা নয়। এটা হয় কায়দাবাজি, নয় মূর্খতা।

Advertisements

মন্তব্য?

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s