একজন জঙ্গি, একজন মডেল এবং বিডিনিউজ

বাংলাদেশে আরো হামলার হুমকি দিয়ে আইএসের প্রকাশ করা ভিডিওর তিন তরুণের পরিচয় কী। এই বিষয় নিয়ে ফেইসবুকে বিভিন্ন তথ্যই এসেছে। একইসঙ্গে তাদের পরিচয় নিয়ে খবর প্রকাশ হয়েছে সংবাদমাধ্যমেও।

সংবাদমাধ্যমগুলোর মধ্যে অন্তত দুটি মডেল নায়লা নাঈমকে সম্পৃক্ত করে খবরের শিরোনাম করেছে গত ৭ জুলাই। বিডিনিউজ২৪ডটকমের খবরের শিরোনাম হুমকিদাতাদের মধ্যে মডেল নায়লা নাঈমের সাবেক স্বামীও। বিডিনিউজের খবর প্রকাশের তিন ঘণ্টা পর একই খবর অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত আকারে প্রকাশ করে বাংলানিউজ২৪ডটকম। তাদের খবরের শিরোনাম

আইএস ভিডিওতে দন্ত্য চিকিৎসক তুষার
আইএস ভিডিওতে দন্ত্য চিকিৎসক তুষার

নায়লা নাঈমের সাবেক স্বামীও হুমকিদাতাদের একজন। বাংলানিউজের খবরে তেমন তথ্য না থাকলেও পাঠককে খাওয়ানো শিরোনাম করতে তারা ভুল করেনি।

বিডিনিউজের খবরটি ছিলো বেশ তথ্যবহুল। এতে বলা হয়: ওই তরুণ (তুষার) একজন দন্ত্য চিকিৎসক, তার প্রয়াত বাবা সেনা কর্মকর্তা ছিলেন এবং তিনি মডেল নায়লা নাঈমের সাবেক স্বামী। তিন তথ্যের মধ্যে বিডিনিউজের শিরোনামে গুরুত্ব পেয়েছে ‘নায়লা নাঈম’ অংশটি, যদিও এ বিষয়ে নায়লার কোনো বক্তব্য ওই খবরে নেই। তবে ওই নামটি থাকলে খবরটি পাঠককে বেশি খাওয়ানো সম্ভব।

নইলে শিরোনামটি এমন হতে পারতো:

দন্ত্য চিকিৎসক তুষার এখন আইএস হুমকিদাতা

হুমকিদাতাদের মধ্যে সাবেক সেনা কর্মকর্তার ছেলে

তবে ওই দুই শিরোনামের চেয়ে ‘নায়লা নাঈম’সহ শিরোনাম পাঠকের জন্য অনেক বেশি আকর্ষণীয়, অর্থাৎ ক্লিক-উপযোগী।

তুষার ও নায়লার বিয়ের তথ্য বিডিনিউজ জেনেছে কয়েকটি সরকারি সূত্র থেকে। এই বিয়ে খবরটির প্রধান ভিত্তি হলেও এ বিষয়ে নায়লার কোনো বক্তব্য খবরে রাখেনি বিডিনিউজ। হয়তো তারা নায়লার সঙ্গে কথা বলার সময় করে উঠতে পারেনি, কিংবা প্রয়োজন মনে করেনি। বাংলানিউজও তাদের খবরে নায়লার কোনো বক্তব্য নেয়ার প্রয়োজন বোধ করেনি।

তবে কথা বললে বিপদও ছিলো। নায়লা যদি বিয়ের কথা অস্বীকার করেন? তাহলে তো আর ‘নায়লা নাঈমের সাবেক স্বামীও’ শিরোনাম করা যাবে না। পাঠককে বেশি করে খাওয়ানোও যাবে না খবরটি। তাই শিরোনামে নায়লা নাঈম এবং খবরটি ফেইসবুকে শেয়ার হয়ে গেলো ৯,৫০০-এর বেশি। আর রেকমেন্ড হলো ৩১,০০০ বার।

গত ৮ জুলাই নায়লার সঙ্গে কথা বলে এনটিভি। সেসময় বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করেন নায়লা। তিনি বলেন, ‘আসলে সে আমার ডেন্টাল কলেজের ক্লাসমেট ছিল এবং আমরা অনেক কাছের বন্ধু ছিলাম। গ্র্যাজুয়েশন শেষ হয়ে যাওয়ার পরও আমাদের দুজনের যোগাযোগ হতো। কিন্তু আমাদের গত তিন-চার বছর ধরে কোনো ধরনের যোগাযোগ ও সম্পর্ক ছিল না। সে এখন কী করছে, এ বিষয়ে আমার বিন্দুমাত্র ধারণা নেই। মিডিয়া একটা ইস্যু খুঁজে পেয়েছে এবং কিছু লোক ঘটনার থেকে অতিরিক্ত কিছু বানিয়ে আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করতে চাইছে।’


বিডিনিউজের খবর ।। বাংলানিউজের খবর ।। এনটিভির খবর

Advertisements

মন্তব্য?

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s