‘ভুল স্বীকার’ বিষয়ে সম্পাদক মাহফুজ আনামের বক্তব্য

নিজের ‘ভুল স্বীকার’ বিষয়ে ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম বক্তব্য রেখেছেন চ্যানেল আই-র আজকের সংবাদপত্র অনুষ্ঠানে। ৭ ফেব্রুয়ারির ওই পর্বটির ভিত্তিতে পরদিন সবাই ভুল করেছে আমি আত্মোপলব্ধি থেকে স্বীকার করেছি শিরোনামের একটি খবর প্রকাশ করে দৈনিক কালের কণ্ঠ। সেই খবরটি নিচে হুবহু সংকলিত করা হয়েছে।

ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম বলেছেন, আমার আত্মসমালোচনা-মূলক উক্তি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের আলোচনা হচ্ছে। যেভাবে লাঞ্ছনার শিকার হতে হচ্ছে তাতে আমার মনে হচ্ছে, যতই ভুল করো কোনো দিন স্বীকার কোরো না। আমার নৈতিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে—এটা সাংবাদিকতার জন্য রং মেসেজ (ভুল বার্তা)। গত শনিবার চ্যানেল আইয়ে ‘আজকের সংবাদপত্র’ শীর্ষক টক শোতে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

Mahfuz Anam
মাহফুজ আনাম

টক শো সঞ্চালক মতিউর রহমান চৌধুরীর প্রশ্নে জবাবে মাহফুজ আনাম বলেন, সাংবাদিকতার সব বিষয় নিয়েই আলোচনা হওয়া উচিত। সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে সমালোচনামূলক আলোচনা আরো বেশি উৎকর্ষ আনবে এই পেশায়। তবে আমার দুঃখও আছে, শুধু আমাকে নিয়ে কেন আলোচনা হবে? একই ভুল শুধু আমার পত্রিকা করেনি। সে সময় অনেক গণমাধ্যমই এটা করেছে। তাদের নিয়ে কিছু বলা হচ্ছে না।

মাহফুজ আনাম বলেন, সম্পূর্ণ আলোচনাটা হচ্ছে ডেইলি স্টার ও সম্পাদক নিয়ে। যে সময়ের ঘটনা, মানে ১/১১ সময়ের জুন মাসে, কিছু প্রতিবেদন ছাপিয়েছি আমার পত্রিকায়। যার সোর্স উল্লেখ ছিল ডিজিএফআই। তবে আমরা আলাদাভাবে এই নিউজের সত্যতা যাচাই করে দেখিনি। সম্পাদক হিসেবে আমার আরো বিচক্ষণ হওয়া উচিত ছিল। আমার প্রশ্ন, ডেইলি স্টার কি একাই ছেপেছিল ওই সংবাদ? সে সময় কয়েকটি কাগজ আগে থেকেই শুরু করেছে। তারা আলোচনায় আসছে না কেন? তিনি বলেন, যখন সেনাসমর্থিত কেয়ারটেকার (তত্ত্বাবধায়ক) ছিল সে সময়ের প্রতিবন্ধকতা নিয়ে আলোচনা হওয়া উচিত। সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা ছিল। আমার দুঃখ, শুধু আমাকে সাজা দেওয়া উচিত—এমনটি বলা হচ্ছে। আমি বলতে চাই না যে অন্যরা করেছে বলে আমি করেছি। নিজে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে বলেছি, এটা ভুল ছিল। আমি সহজভাবে ২৩ বছরের সম্পাদক হিসেবে নিজের ভূমিকা, আত্মোপলব্ধি থেকে বলেছি। আমাদের বলিষ্ঠ ভূমিকা, কী ভুল করেছি, সবই বলেছি। যে টক শোতে আমি এই মন্তব্য করেছিলাম সেখানে আমি এড়িয়ে যেতে পারতাম। তাহলে এত আলোচনা হতো না। ওই দিন চুপ থাকলে এত লাঞ্ছনা সহ্য করতে হতো না। আমি দেখিয়েছি, সম্পাদকরা ভুল করতে পারেন। আমি দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছি। সম্পাদক হওয়ার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন পাঠকের কাছে ছেড়ে দেব।

ডেইলি স্টার সম্পাদক বলেন, ১/১১-এর পটভূমি তৈরিতে ডেইলি স্টার ভূমিকা রেখেছে—এমন অভিযোগ করা হয়। কিন্তু আমি গর্বিত ২০০৭ সালে ফ্রি নির্বাচন দেওয়ার কথা বলে ৫১টি সম্পাদকীয় লিখেছি। গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিতে ৫২টি সম্পাদকীয় লিখেছি। ২০০৮ সালে নির্বাচনকেন্দ্রিক ৭২টি ও গণতন্ত্রের ওপর ২৮টি সম্পাদকীয় লিখেছি।

মাহফুজ আনাম বলেন, ১৬ জুলাই শেখ হাসিনা গ্রেপ্তার হলেন। আমি ১৭ জুলাই শেখ হাসিনা গ্রেপ্তার, কোনো সমাধান দেবে না এবং তাঁর মুক্তি জানিয়ে নিজের নামে মন্তব্য কলাম লিখেছি, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মুক্তি চাই। তাঁর গ্রেপ্তার অযৌক্তিক বলেছি। আর কেউ কি নিজের নামে লিখেছিলেন? অভিযোগ করা হয়, মাইনাস টু পরিকল্পনায় আমার ভূমিকা আছে; কিন্তু কেউ কি প্রমাণ দিতে পারবে? বিতর্ক করে সাংবাদিককে হেয় করার মানসিকতায় না গিয়ে কিভাবে সাংবাদিকতার উন্মেষের দিকে যাওয়া যায়, সেটা হবে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।


 

Advertisements

মন্তব্য?

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s