শাবি অধ্যাপকের অনিচ্ছাকৃত হত্যা: সমকালে যুৎসই শিরোনাম, বাকিরা গুরুত্ব দেয়নি

গাড়ি চালানো শিখতে গিয়ে গাড়ির নিয়ণ্ত্রণ হারিয়ে দুজন মানুষকে হত্যা করেছেন শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মো. আরিফুল ইসলাম। তিনি গাড়ি চালানো শিখছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। সকাল ১১টায়। তার সঙ্গে স্বীকৃত কোনো ড্রাইভিং ইন্সট্রাক্টর ছিলেন না।

২৪ জানুয়ারি প্রকাশিত বাংলাদেশের ছয়টি সংবাদপত্র ঘেঁটে দেখা গেল, গাড়ি চালানো শিখতে গিয়ে একজন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকের দুজন মানুষের প্রাণ হরণের খবরটি সংবাদমাধ্যমের কাছে তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয়।

ছয়টি পত্রিকার কোনোটিতেই শাবির সেই অধ্যাপকের ছবি প্রকাশ হয়নি। সমকালে নিহত দুজনের ছবি প্রকাশ হয়েছে।


২৩ জানুয়ারির ওই ঘটনাটি দৈনিক আমাদের সময় তার প্রথম বা শেষ পৃষ্ঠায় কোথাও জায়গা দিতে পারেনি। নিচের ছবিতে ক্লিক করে বড় করে নিয়ে দেখুন পত্রিকাটি ২৪ জানুয়ারি ওই দুই পৃষ্ঠায় কী কী খবর ছেপেছে:

Amader_Somoy
দৈনিক আমাদের সময়ের প্রথম ও শেষ পৃষ্ঠা

দৈনিক প্রথম আলোও খবরটিকে প্রথম পৃষ্ঠায় জায়গা দেয়ার মতো গুরুত্বপূর্ণ মনে করেনি। শেষ পৃষ্ঠায় একেবারে নিচে আড়াই কলামে দুর্ঘটনাস্থলে রক্ত ধোয়ামোছার ছবি ছেপে ‘মর্মস্পর্শী’ একটি ক্যাপশন দিয়েছে। আর খবরটি ছেপেছে ১৭ পৃষ্ঠায়। নিচের ছবিতে ক্লিক করে দেখুন প্রথম আলোর প্রথম ও শেষ পৃষ্ঠা। বোঝা যাবে কোন্ কোন্ গুরুত্বপূর্ণ খবরের ধাক্কায় অধ্যাপকের অনিচ্ছাকৃত মানুষ খুনের খবর শেষ পৃষ্ঠায় ছবি হয়ে ১৭ পৃষ্ঠায় খবর হয়েছে!

Prothom_Alo
প্রথম আলোর প্রথম ও শেষ পৃষ্ঠা

দৈনিক কালের কণ্ঠ খবরটি প্রথম পৃষ্ঠায় প্রকাশ করেছে। এক কলামে প্রকাশিত খবরটির শিরোনাম শাবিতে ড্রাইভিং ‘প্রশিক্ষণ’: অধ্যাপকের গাড়িচাপায় শিক্ষকসহ নিহত ২। ছবি নিচে:

K Kntho-Jan 24-Front
কালের কণ্ঠের প্রথম পৃষ্ঠা

 


দৈনিক ইত্তেফাক তার শেষ পৃষ্ঠায় এক কলামে (পঞ্চম কলাম) প্রকাশের যোগ্য বলে মনে করেছে খবরটিকে।নিচের ছবিতে ক্লিক করে দেখুন পত্রিকাটির প্রথম ও শেষ পৃষ্ঠা। তারপর ভাবুন, অধ্যাপকের অনিচ্ছাকৃত মানুষ খুনের খবরটি এক কলামের চেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশের সুযোগ ইত্তেফাকের ছিলো কি না:

Ittefaq
দৈনিক ইত্তেফাকের প্রথম ও শেষ পৃষ্ঠা

বাংলাদেশ প্রতিদিন এই খবরটি প্রথম পৃষ্ঠায় ছেপেছে। লোয়ার ফোল্ডে দুমড়ানো গাড়ির ছবিসহ ড্রাইভিং শিখতে গিয়ে শিক্ষকের গাড়িচাপায় গেল দুই প্রাণ শিরোনামে তারা খবরটি প্রকাশ করেছে দুই কলামে। পত্রিকাটির ছবি দেখুন নিচে:

Banglaedsh_Pratidin
বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রথম পৃষ্ঠা

দৈনিক সমকাল শেষ পৃষ্ঠায় দুই কলামে খবরটি প্রকাশ করেছে। ছয় পত্রিকার মধ্যে সমকালের শিরোনামটি সবচেয়ে যুৎসই: গাড়ি চালানো শিখতে গিয়ে দু’জনের প্রাণ নিলেন শাবি শিক্ষক। সমকালের প্রথম ও শেষ পৃষ্ঠা দেখুন নিচে:

Samakal
সমকালের প্রথম ও শেষ পৃষ্ঠা

ইচ্ছৈ করলে খবরটি প্রথম পৃষ্ঠায় ছাপানো যেত বলে মত দেবেন অনেকেই।

Advertisements

মন্তব্য?

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s