রাজন হত্যা এবং আমাদের নীতিহীন মিডিয়া

সিলেটে ১৩ বছরের শিশু শেখ সামিউল আলম রাজনকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে কয়েকজন মানুষ। পেটানোর ওই ঘটনা নিজেরাই ভিডিও করে ফেইসবুকে আপলোড করেছে তারা।

৯ জুলাইয়ের ওই ঘটনা দেশের সংবাদমাধ্যমে পৌঁছায় ১২ জুলাই। মূল ধারার প্রায় সব সংবাদমাধ্যমই খবরটি তাদের অনলাইন ও মুদ্রিত সংস্করণে প্রকাশ করে। পাশাপাশি তেমন-পেশাদার-নয় এমন অনেক অনলাইনও খবরটি প্রকাশ করে। অনলাইনগুলোর অনেকগুলোতেই রাজনকে অত্যাচারের ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়।

Sylhet-Rajon-Murder1যেসব অনলাইনে ওই ভিডিও প্রকাশ হয় তার একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা: প্রিয়ডটকম, বাংলানিউজ২৪ডটকম, বাংলামেইল২৪ডকম, সময়ের কণ্ঠস্বর ডটকম, জাগোনিউজ২৪ডটকম, এনটিভি অনলাইন। এই সংবাদামাধ্যমগুলোর প্রত্যেকে ১১ মিনিটের একটি ভিডিও প্রকাশ করে। রাইজিংবিডিডটকম ভিডিওটি প্রকাশ না করলেও রাজনকে মারধরের বেশ কয়কেটি স্ক্রিনশট প্রকাশ করে।

১২ জুলাই ডেইলি স্টার অনলাইনের খবরে প্রথমে ভিডিও প্রকাশ করা হয়। একই সঙ্গে তা প্রকাশ করা হয় পত্রিকাটির ইউটিউব চ্যানেলেও। তবে ১২ তারিখ রাতে খবর থেকে ভিডিওটি সরিয়ে নেয়া হয়। ১৩ জুলাই সকালে ইউটিউব চ্যানেলে থেকেও ভিডিওটি সরিয়ে নেয়া ডেইলি স্টার।

বিডিনিউজ২৪ডকম এক মিনিটের একটি ভিডিও প্রকাশ করে যা ইউনিসেফের নীতিমালা মেনে সম্পাদনার পর প্রকাশ করা হয় বলে ভিডিওতে লেখা রয়েছে।

যেসব অনলাইনে ওই ভিডিও প্রকাশ হয়নি তার সংক্ষিপ্ত তালিকা: প্রথম আলো, কালের কণ্ঠ, ইত্তেফাক, ঢাকা ট্রিবিউন।

শুধু একজন শিশু নয়, যেকোনো মানুষকে নির্যাতনের দৃশ্য এভাবে প্রকাশ করা অমানবিক। মানসিকভাবে সুস্থ কোনো মানুষ নির্যাতনের কোনো দৃশ্য অন্য মানুষের দেখার জন্য উন্মুক্ত করে দিতে পারে না। বাংলাদেশের যেসব অনলাইন সংবাদমাধ্যম রাজনকে নির্যাতনের ভিডিওটি প্রকাশ করেছে সেখানে কর্মরত সাংবাদিকরা কি তা জানেন না? নৈতিকতার এই সামান্য বোধটুকু কি তাদের নেই?

তবে বাংলাদেশের বেশিরভাগ সাংবাদিক নৈতিকতাহীন হলেও ইউটিউব, অর্থাৎ গুগল, এখনো নীতিবোধ হারায়নি। তারা নির্যাতনের ওই ভিডিওটি একটি ইউটিউব কয়েকটি অ্যাকাউন্ট থেকে সরিয়ে নিয়েছে।

অবশ্য বাংলাদেশের বর্বর মানুষের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে গুগলই বা কতটুকু পারবে? তাই কয়েকটি অ্যাকাউন্ট থেকে গুগল ভিডিওটি সরিয়ে নিলেও অন্য আরো একাধিক অ্যাকাউন্টে ভিডিওটি এখনো দেখা যাচ্ছে।

ডিসক্লেইমার :: এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন পোস্টে প্রকাশিত বক্তব্য লেখকের নিজস্ব। সেগুলোকে তার প্রাতিষ্ঠানিক অবস্থানের সঙ্গে সম্পর্কিত করে বিবেচনা করা হলে লেখক বা প্রতিষ্ঠান দায়ী থাকবে না।

Advertisements

মন্তব্য?

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s